Permalink
Switch branches/tags
Nothing to show
Find file Copy path
Fetching contributors…
Cannot retrieve contributors at this time
37 lines (23 sloc) 5.44 KB

কিউট পরিচিতি

Qt (উচ্চারণ কিউট) একটি ক্রসপ্লাটফর্ম এপ্লিকেশন ডেভলপমেন্ট ফ্রেমওয়ার্ক যা দিয়ে সহজেই সাপোর্টেড প্লাটফর্ম ও হার্ডওয়্যারের জন্য এপ্লিকেশন ডেভলপ করা যায়। বর্তামানে কিউট ডেভলপ করে কিউট কোম্পানি, যা আসলে ডিজিয়া'র অংশ, এবং কিউট প্রজেক্ট নামের ওপেনসোর্স অর্গানাইজেশন। কিউট এর কমার্শিয়াল এবং ওপেনসোর্স দুরকম লাইসেন্সই রয়েছে। ফলে ডেভলপাররা ইচ্ছামত লাইসেন্স নিয়ে কাজ করতে পারেন।

কিউট আসলে গ্রাফিকাল ইউজার ইন্টারফেস ফ্রেমওয়ার্ক হলেও এটা দিয়ে কমান্ডলাইন এবং সার্ভার এপ্লিকেশন তৈরী করা সম্ভব। সেই সাথে ডাটাবেজ সাপোর্ট, এক্সএমএল পার্সার, জেএসওএন এবং নেটওয়ার্কিং সাপোর্ট থাকায় এটা দিয়ে অনেক রকম এপ্লিকেশন তৈরী করা যায়।

কিউট সাপোর্টেড প্লাটফর্ম

কিউট বর্তমানে নিচের প্লাটফর্ম গুলোতে কাজ করে।

  • এন্ড্রয়েড
  • এমবেডেড লিনাক্স
  • আইওএস
  • ব্ল্যাকবেরি
  • ম্যাক ওএস টেন (Mac OS X)
  • উইন্ডোজ
  • উইন্ডোজ আরটি
  • উইন্ডোজ সিই
  • এক্স ইলেভেন (X11) বা লিনাক্স

কিউট ৫

কিউটের বর্তমান ভার্শন ৫ যা ২০১২ এ প্রথম রিলিজ হয়। কিউট ৫ থেকে হার্ডওয়্যার এক্সিলারেশন, কিউএমএল এবং জাভাস্ক্রিপ্ট এসব দিক অনেক উন্নত করা হয়। সেই সাথে এন্ড্রয়েড ও আইওএস সাপোর্ট যুক্ত হয়। তাছাড়া কিউটের ওয়েবকিট ইঞ্জিনটিকে আরো উন্নত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

কিউটের সামান্য ইতিহাস

Haavard Nord এবং Eirik Chambe-Eng সর্বপ্রথম ১৯৯১ সালে কিউট ফ্রেমওয়ার্ক ডেভলপ করা শুরু করেন। তখন কিউট ডেভলপ করা হত ট্রলটেক কোম্পানির অধীনে। প্রথমদিকে শুধুমাত্র এক্স ইলেভেন (X11) আর উইন্ডোজ প্লাটফর্মের জন্য কিউট রিলিজ হলেও পরে ম্যাক ওএস টেন (Mac OS X) এর জন্য রিলিজ করা হয়। ২০০৮ এ নকিয়া ট্রলটেক-কে কিনে নেওয়ার পর সিম্বিয়ান এস৬০ প্লাটফর্মের জন্য কিউট ডেভলপ করা হয় ও এসডিকে রিলিজ করা হয়। ২০১২ তে ডিজিয়া নকিয়ার কাছ থেকে কিউট কিনে নেয় এবং অনেক ডেভলপমেন্টের পর কিউট ৫ রিলিজ করে।

কিউট দিয়ে তৈরী সফটওয়্যার

কমার্শিয়াল এবং অসংখ্য ওপেনসোর্স প্রজেক্টে কিউট ব্যাবহার করা হয়। কমার্শিয়াল কোম্পানি ও অর্গানাইজেশন যেমন ইউরোপ স্পেস এজেন্সি, ড্রিমওয়ার্কস, লুকাসফিল্ম, প্যানাসনিক, ফিলিপস, স্যামসাঙ, সিমেন্স, ভলভো, ওয়াল্ট ডিজনি, ব্লিজার্ড এন্টারটেইনমেন্ট কিউট ব্যাবহার করে। সফটওয়্যারের মাঝে কোয়ার্টাস, অটোডেস্ক মায়া, ম্যাথমেটিকা, গুগল আর্থ, কেডিই, স্কাইপে, স্পটিফাই, ভার্চুয়ালবক্স, ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার সহ প্রচুর সফটওয়্যার কিউট দিয়ে তৈরী।

রেফারেন্স

কিউটের অফিশিয়াল সাইট

উইকিপিডিয়াতে কিউট আর্টিকেল